Breaking News

চুলের সমস্যায় নাজেহাল? জেনে নিন সমাধানের উপায়

সাজার জন্য আয়নার সামনে দাঁডিয়ে চুলে চিরুনি দিতেই মুখটা বেজার হয়ে গেল। গোছা গোছা চুল উঠে এল চিরুনিতে। এই ছবিটা এখন সর্বত্রই এক। চুলের সমস্যায় নাজেহাল প্রায় প্রত্যেকেই। অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, রাস্তার ধুলোময়লা তো আছেই। চুল খারাপ হওয়ার জন্য দায়ী খাদ্যাভ্যাসও।

শুধুমাত্র স্পা বা হেয়ার ট্রিটমেন্ট করালেই চুলের স্বাস্থ্য ফিরবে না। চুলের চাই সঠিক পুষ্টি। শুধু পার্লারে নয়, নজর দিন খাবারের প্লেটেও। চুলের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর খাবারগুলো আজ থেকেই বাদ দিতে শুরু করুন।

মিষ্টি জাতীয় খাবার চুলের স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল নয়। অতিরিক্ত চিনি বা রিফাইন্ড ময়দা দিয়ে তৈরি খাবার খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিন। ব্লাড সুগার বাড়লে অ্যান্ড্রোজিন হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে হেয়ার ফলিকল নষ্ট করে দেয়, যা চুল পড়ার অন্যতম কারণ।

অতিরিক্ত স্যাচুরেটেড ফ্যাট ও হাইডারোজেনেটেড অয়েল রয়েছে যে সব খাবারে, সেগুলি এড়িয়ে চলাই ভাল। এই তেল স্ক্যালপে জমে রোমকূপ বন্ধ করে দিতে পারে, যার ফলে চুল পড়ার সমস্যা বাড়তে পারে। তার চেয়ে বরং ট্রান্স ফ্যাট রয়েছে এমন খাবার যোগ করুন খাদ্যতালিকায়। বেকড খাবারে ট্রান্স ফ্যাট থাকে।

পর্যাপ্ত পরিমাণে খনিজ পদার্থ চুলের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। ডিম, মাংস, বিনস, মাশরুম, ড্রাই ফ্রুটস, সবুজ শাক সবজি যেমন পালং শাক ইত্যাদি আয়রন এবং জিঙ্ক সমৃদ্ধ খাবার খান। চুলের স্বাস্থ্যের জন্য আয়রন এবং জিঙ্ক অতীব প্রয়োজনীয় দুটি খনিজ পদার্থ।

অতিরিক্ত পারদযুক্ত মাছ খাদ্যতালিকা থেকে যথাসম্ভব পরিহার করুন। ভেটকি বা টুনার মতো মাছ বেশি খাবেন না। পরিবর্তে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে এমন মাছ খেতে পারেন। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

চুলের স্বাস্থ্যের জন্য জিঙ্ক যে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় সে কথা আগেই বলা হয়েছে। অতিরিক্ত বিয়ার বা ওয়াইন পান করলে জিঙ্ক হজম করতে অসুবিধে হয়। বেশি পরিমাণ মদ্যপান সাধারণভাবেই চুলের পক্ষে ক্ষতিকর। তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

About admin

Check Also

অভিনয় ছেড়ে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ছি, কোরআন হাদিস পড়ছি: এ্যানি খান

অভিনয় ছাড়ার ঘোষণা দিলেন মডেল ও অভিনেত্রী এ্যানি খান। দীর্ঘ ২৩ বছরের মিডিয়া ক্যারিয়ারের পাঠ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *